শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

আজ মজলুম জননেতা মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৪তম মৃত্যু বার্ষিকী !

বিশেষ প্রতিনিধি
আপডেট বুধবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২০, ১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

নামাজ হইতে আসিয়া হুজুর কোরবাণীর হুকুম দিলেন। ময়মনসিংহের সৈয়দ শরফুদ্দীন হাবীব একটি গরু পাঠাইয়াছিলেন। মুরিদদের কেউ কেউ খাসী দিয়াছিলেন। সব জবেহ হইল। হুজুর কাহাকেও গোশত দেন না। পাক করাইয়া একসাথে সবাইকে খাওয়াইয়া দেন। পাকের মশলার অভাবে অনেক গরীব গোশত বিক্রয় করিয়া দেয়। অথবা কোন রকম সিদ্ধ করিয়া খায়। তাই হুজুর খিচুড়ী ও গোশত খাওয়ান। হুজুরের বাড়িতে একটা কুকুর থাকিত। এক টুকরা ভাল গোশত কুকুরটাকে নিজেই খাইতে দিলেন। বলিলেন, নাড়ি-ভুড়ি তো খাবেই। কিন্তু কোরবানীর গোশতের হিস্যা হিসাবে এইটা। দুপুরে হাজার হাজার লোকের জমায়েত হইল। সবার হাতে কলাপাতা। দশের হাতে শীগগীর পাকও হইয়া গেল। গরু খাসী যাহা পাক হইল সবই খাওয়ানো হইল। আমরাও কিছু খাইতে পাইলাম বটে। রাত্রে অবিশ্বাস্য হইলে সত্য- হুজুর ও আমরা ডাল ভর্তায় ভাত খাইলাম। খাইতে বসিয়া হুজুর বলিলেন, একটা ভুল হইয়া গেল রে। বাবুর মার (স্ত্রী) লাগি আমাদের কোরবানীর তরকারি তো রাখা হইল না। তারপর নিজেই বলিলেন, ঠিক আছে, কাল নানান জায়গা তনে (থেকে) তো তরকারি আসবই।

[তাঁহার ঈদ, ১৯৭৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর সাপ্তাহিক হক কথায় প্রকাশিত।]

আজ মজলুম জননেতা মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৪তম মৃত্যু বার্ষিকী ! একজন জাতীয় নেতা,দেশবরেণ্য ব্যক্তিত্ব ও আওমীলীগের প্রতিষ্ঠাতা হিসাবে হুজুর মাওলানা ভাসানী কখনো তেমন মর্যাদা পাননি !! অথচ জীবদ্দশায় তিনি ১৯৪৭ এ পাকিস্তান এবং -১৯৭১ সালে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন !

আপনার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা রইল। আল্লাহ আপনাকে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করুক !!


এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD